মানুষ এবার সূর্যে যাওয়ার মিশনে নেমেছে

0
263

গণমাধ্যম ডেস্ক: : অবশেষে নাসা প্রথমবারের মতো সূর্য অভিমুখে মহাকাশযান পাঠালো। রবিবার সূর্যের সবচেয়ে কাছের দৃশ্য মানুষের সামনে তুলে ধরতে পার্কার সোলার প্রোব নামের ১.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের এই মহাকাশযানটি ইতিহাসের জন্য নিঃসন্দেহে অত্যন্ত বড় একটি পদক্ষেপ বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা।

মানুষ এবার সূর্যে যাওয়ার মিশনে নেমেছে। প্রথমবারের মত সূর্যের দিকে মহাকাশযান ছাড়লো নাসা। ফ্লোরিডার কেপ ক্যানাভেরাল স্পেসস্টেশন থেকে রকেটের দ্বারা এই উৎক্ষেপণটি হয়। এই রকেটটি বেশ খরুচেও বটে। সূর্যপথে যেতে খরচটা পড়েছে ১.৫ বিলিয়ন। তবে এটি নিঃসন্দেহে একটি বড় পদক্ষেপ বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

স্পেসক্র্যাফ্টের কাঠামোটিতে রয়েছে কার্বন যৌগের ৪.৫ ইঞ্চি পুরু শিল্ড যা সূর্য থেকে পৃথিবীতে আসা রেডিয়েশনের চেয়েও ৫০০ গুণ বেশি রেডিয়েশন প্রতিরোধ করতে পারে। এছাড়া ম্যাগনেটিক ও ইলেক্ট্রিক ফিল্ড, প্লাজমা তরঙ্গ এবং উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন পার্টিকেল পরিমাপের জন্য বিভিন্ন ধরনের যন্ত্রপাতি বসানো হয়েছে এতে।

৯১ বছর বয়স্ক অ্যাস্ট্রোফিজিসিস্ট ইউজিন পার্কারের নামে নামকরণ করা হয়েছে মহাকাশযানটি। সূর্যের পৃষ্ঠ থেকে প্রায় ৬১ লাখ কিলোমিটার ওপর থেকে বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করবে এবং প্রায় ১৩৭০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপের মধ্যে অবস্থান করবে মানবহীন স্পেসক্র্যাফটি। এটি সাত বছরের একটি মিশন। এসময় করোনার মধ্যে দিয়ে স্পেসক্র্যাফটি ২৪ বার ভ্রমণ করবে।

এই মহাকাশযানটি যত দূরে যেতে পারবে এর আগে সেই দূরত্বের সাতভাগের এক ভাগ ও যেতে পারেনি মানুষ। এর সঙ্গে যুক্ত করা যন্ত্রপাতি দ্বারা তথ্য সংগ্রহ করাই এখন বিজ্ঞানীদের পরবর্তী উদ্দেশ্য।

সূত্র : সময় টিভি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here